গুগল অ্যাডসেন্স থেকে বেশী-বেশী আয় করার সেরা ১০ টি কৌশল

10 Ways to Make Money from AdSense

আমাদের যাদের ওয়েবসাইট অথবা ব্লগ রয়েছে তাদের অন্যতম আয়ের মাধ্যম হল গুগল অ্যাডসেন্স। অনলাইনে অসংখ্য ওয়েবসাইট/ব্লগের মালিক তাদের ব্লগ/ওয়েবসাইট থেকে গুগল অ্যাডসেন্স এর অ্যাড এর মাধ্যমে ভালো পরিমান অর্থ অনলাইন থেকে আয় করছে। এদের মধ্য কোন ওয়েবসাইট এর মালিক সবার থেকে তুলনামুলকভাবে একটু বেশীই আয় করে থাকে। কিন্তু কেন তাঁরা অন্যদের চাইতে এগিয়ে এটাই আমরা আজকের এই আর্টিকেল এর মাধ্যমে জানার চেষ্টা করব। আমরা এই আর্টিকেলে এমন কিছু কৌশল জানার চেষ্টা করব যেগুলো ব্যবহার করলে আমাদের ওয়েবসাইট/ব্লগেরও আয় কয়েক গুন বেড়ে যাবে।

এই আর্টিকেলটি পড়ুনঃ গুগল অ্যাডসেন্স (Google Adsense) কি?কিভাবে গুগল অ্যাডসেন্সে কাজ শুরু করবেন?বিস্তারিত গাইডলাইন

অ্যাডসেন্স থেকে কিভাবে বেশী আয় করা যায় সে ব্যাপারে অ্যাডসেন্সে যারা সফল তাঁরা কিছু পরামর্শ প্রদান করেছেন, তাদের মতে এসব নিয়ম মেনে কেউ কোন ব্লগ বা ওয়েবসাইট পরিচালনা করলে সেই ওয়েবসাইট/ব্লগ থেকে অন্যদের চাইতে অ্যাডসেন্স এর মাধ্যমে বেশী ইনকাম করা সম্ভব। তাঁরা যে নিয়ম গুলোর কথা বলেছে সেইগুলো মেনে চললে আপনার শুধু অ্যাডসেন্স থেকে আয়ই বাড়বে না, পাশাপাশি আপনার অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্টও থাকবে নিরাপদ। কারন পাবলিশারদের করা ভুলের কারনে প্রায়ই অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট ব্যান করা হয়ে থাকে।

গুগল অ্যাডসেন্স থেকে বেশী আয় করার সেরা কিছু কৌশল :

১/ আপনার এমন কোন বিষয় (নিশ) নিয়ে ওয়েবসাইট তৈরি করা উচিত যে বিষয়ে আপনার খুব বেশী আগ্রহ রয়েছে এবং আপনি সেই বিষয়ে এক্সপার্ট।

২/ আপনি যদি আপনার আয় বাড়াতে চান তাহলে আপনার উচিত হবে একাধিক ওয়েবসাইট নিয়ে একসাথে কাজ করা এবং প্রতিটি ওয়েবসাইট যেকোনো একটি নির্দিষ্ট বিষয় (নিশ) ভিত্তিক হবে।

৩/ গুগল অ্যাডসেন্স থেকে বেশী পরিমান আয় করতে চাইলে আপনাকে অবশ্যই ইউনিক কন্টেন্ট আপনার ওয়েবসাইটে পাবলিশ করতে হবে, কারন ইউনিক আর্টিকেল/কন্টেন্ট ছাড়া গুগল সার্চে রাঙ্ক পাওয়ার সম্ভবনা খুবই কম, সুতরাং এই বিষয়ে কোন প্রকার ছাড় দেওয়া যাবে না।

৪/ অ্যাডসেন্স থেকে ভালো পরিমান আয় করতে চাইলে অবশ্যই গুগল অ্যাডসেন্স সাপোর্ট করে এমন ভাষার ওয়েবসাইট অথবা ব্লগে গুগল অ্যাডসেন্স ব্যবহার করুন, অন্যথায় আপনি গুগল অ্যাডসেন্স থেকে ভালো পরিমান আয় করতে পারবেন না এবং আনসাপোর্টেড ভাষার ওয়েবসাইটে অ্যাডসেন্স ব্যবহার করার ফলে আপনার গুগল অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট ব্যান হয়ে যেতে পারে। গুগল কোন কোন ভাষা সাপোর্ট করে তা জানা যাবে এই লিংকে।

৫/ দুর্বল কন্টেন্ট নিয়ে যেসব কী-ওয়ার্ডে গুগল বেশী পে করে এমন কী-ওয়ার্ড টার্গেট করা থেকে নিজেকে বিরত রাখতে হবে, আর যদি আপনি একান্তই হাই পেইং কী-ওয়ার্ড নিয়ে কাজ করতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে হাই কোয়ালিটি আর্টিকেল/কন্টেন্ট আপনার সাইটে পাবলিশ করতে হবে।

৬/ কখনো গুগল অ্যাডসেন্স এর দেওয়া অ্যাড কোড ম্যানুয়ালি এডিট করে আপনার সাইটে বসাবেন না, আপনার যদি একান্তই পরিবর্তন করতে হয় তাহলে এটা অবশ্যই আপনার অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট থেকে করে নিতে হবে।

৭/ এমন কোন প্লেসে অ্যাড কোড বসাবেন না যা আপনার ভিসিটরকে বিভ্রান্তিতে ফেলে দেয়, আর ভিসিটরকে বিভ্রান্তিকর অবস্থায় ফেলান গুগল একদম পছন্দ করে না। যেমন কোন ছবির পাশে গুগল অ্যাডসেন্স এর অ্যাড বসাবেন না, এমন কোন প্লেসে অ্যাড বসাবেন না যেগুলোতে আপনার ভিসিটর অনিচ্ছাকৃত ভাবে ক্লিক করতে পারে।

৮/ আপনার সাইটে এমন ভাবে অ্যাড প্লেস করতে হবে যেন তা আপনার সাইটের নেভিগেশনে কোন প্রভাব না ফেলে, সাইটের বিভিন্ন জায়গায় “Click Here”, ”click ThisETC. বলে অ্যাডে ক্লিক করতে আপনার ভিসিটরকে উৎসাহ প্রদান ক্রা থেকে নিজেকে বিরত রাখতে হবে।

৯/ অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্টকে নিরাপদ রাখতে নিয়মিত আপনার অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট চেক করতে হবে, যদি কখনও দেখেন হঠাৎ করেই আপনার সাইটে অ্যাড ক্লিক এর পরিমান বেড়ে গেছে, যা আগের মত স্বাভাবিক না, তাহলে আর দেরি না করে দ্রুত অ্যাডসেন্স কর্তৃপক্ষকে জানাতে হবে। তাহলে আর আপনার অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট ব্যান হবার সম্ভবনা থাকবে না।

১০/ আপনার যদি একটি সচল অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট থাকে তাহলে দ্বিতীয় অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট খুলবেন না, এতে করে আপনার উভয় অ্যাকাউন্ট বাতিল হয়ে যেতে পারে, অ্যাডসেন্স একজন ব্যক্তির জন্য মাত্র একটি অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট এর অনুমতি প্রদান করে।

উপরের নিয়ম মেনে আপনি যদি কোন ওয়েবসাইট/ব্লগ তৈরি অথবা পরিচালনা করেন তাহলে অবশ্যই আপনার অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট থেকে ওয়েবসাইট/ব্লগের মাধ্যমে ভালো পরিমান আয় করতে পারবেন এবং আপনার অ্যাকাউন্টও নিরাপদ রাখতে পারবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *