আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনেই পাবেন ভূমিকম্পের পূর্বাভাস!

গুগল, বর্তমান সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় মোবাইল অপারেটিং অ্যান্ড্রয়েডকে ব্যবহার করছে ভূমিকম্প পূর্বাভাস দানের ডিভাইস হিসাবে। গুগল তৈরি করতে চাচ্ছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় Earthquake Detection নেটওয়ার্ক। গুগল তাদের অ্যান্ড্রয়েডকে দিতে চাচ্ছে ভূমিকম্পের পূর্বাভাস প্রদানের ক্ষমতা।

গুগল তাদের Android Earthquake Alerts System এর মাধ্যমে সাহায্য করতে চাচ্ছে ভূমিকম্প প্রবণ এলাকার মানুষদের।

Android Earthquake Alerts System কি?

মূলত গুগলের নতুন এই সিস্টেমটি ফোনকে একটি মিনি Seismometer এ পরিণত করে। এটি Accelerometer ব্যবহার করে, যেটি বেশিরভাগ স্মার্ট-ফোন গুলোতে যুক্ত থাকে, যা বুঝতে পারে ফোনের লোকেশনে ভূমিকম্প হতে পারে কিনা।

যখন ফোন বুঝতে পারবে চারপাশে ভূমিকম্প বা এমন কিছু হচ্ছে তখন এটি গুগলের Earthquake Detection Server এ সিগনাল পাঠাবে এবং সার্ভারের ডেটা গুলোকে একত্রিত করে বের করবে আসলে সেখানে ভূমিকম্প হবে কিনা।

গুগল, The Keyword এর একটি Post এ ঘোষণা দিয়েছে, “এটি ভূমিকম্পের গতি সাথে আলোর গতির একটি প্রতিযোগিতা, আমরা ভাগ্যবান কারণ আলোর গতি বেশি”। এখানে আলো বলতে মোবাইলের সিগনালকেই বুঝানো হয়েছে, কারণ মোবাইলের সিগনালের গতি আর আলোর গতি একই সাথে চলে।

গুগলের Earthquake Alert
ক্যালিফোর্নিয়ায় ভূমিকম্পের এলার্ট পেতে, গুগল United States Geological Survey (USGS) এবং Office of Emergency Services (Cal OES) এর সাথে পার্টনারশিপে গিয়েছে। ক্যালিফোর্নিয়ার ভেতরে অ্যান্ড্রয়েড ভিভাইস গুলোকে সরাসরি ভূমিকম্প এলার্ট দেয়ার জন্য একই সাথে কাজ করবে ShakeAlert

গুগল বর্তমানে শুধুমাত্র ক্যালিফোর্নিয়া তে এই ধরনের পূর্বাভাস চালু করেছে৷ এ বছর আরও কিছু দেশে এবং শহরেও এটা চালু করারও পরিকল্পনা করছে তারা।

জানা গেছে প্রতিটি লোকেশনেই, অ্যান্ড্রয়েড ভিত্তিক ভূমিকম্প পূর্বাভাসের মাধ্যমে ইউজাররা ভূমিকম্পের কিছু সময় আগে পূর্বাভাস পেয়ে যাবে।

শেষ কথা

ঝুঁকিপূর্ণ ভূমিকম্প প্রবণ এলাকার ইউজারদের জন্য দারুণ কাজে আসতে পারে এই নতুন Earthquake Alerts সিস্টেমটি। এখানে গুগলের ব্যবসায়িক স্বার্থ থাকলেও আশা করা যায় এটি বিপুল একটি জনগোষ্ঠীর কাজে আসতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *