কালোজিরা – এক একের ভেতর একশো ওষুধ এর নাম

Kalojiras hundred medicines in one

পুষ্টিবিদ ও খাদ্যবিজ্ঞানীদের মতে, কালোজিরা শুধু রান্নায় স্বাদ যোগ করাই এর একমাত্র কাজ নয় বরং শরীরকে নানা অসুখের সঙ্গে লড়তেও সাহায্য করে

রান্নাঘরের প্রয়োজনীয় উপাদান হলেও কালোজিরা দিয়ে ঘরোয়া চিকিৎসা নতুন কিছু নয়। পুষ্টিবিদ ও খাদ্যবিজ্ঞানীদের মতে, শুধু রান্নায় স্বাদ যোগ করাই এর একমাত্র কাজ নয় বরং শরীরকে নানা অসুখের সঙ্গে লড়তেও সাহায্য করে।

সর্দি-কাশিতে

একটি পরিষ্কার কাপড়ে কালোজিরা জড়িয়ে তা নাকের কাছে নিয়ে গিয়ে বড় করে শ্বাস টানুন কিছুক্ষণ। এর ঝাঁজ বুকে জমে থাকা শ্লেষ্মাকে টেনে বার করতে সাহায্য করে। একইসাথে, নাকবন্ধের সমস্যাতেও ঘরোয়া এই উপায়ের জুড়ি মেলা ভার।

বৃষ্টি ভেজার ফলে সর্দি-কাশি থেকে বুকে চাপ লাগলে কলোজিরার তেল গরম করে বুকে ও পিঠে মালিশ করে চাদর গায়ে থাকুন কিছুক্ষণ। বারকয়েক করলেই কষ্ট কমবে। কাশির প্রকোপ থেকেও রক্ষা পাবেন অনেকটাই।

শ্বাসকষ্টের সমস্যায়

কালোজিরা কাপড়ে জড়িয়ে রাখুন। এবার নাকের কাছে নিয়ে গন্ধ শুঁকুন। শ্বাসকষ্টের কষ্ট থেকে সাময়িক মুক্তি দিতে পারে এই ঘরোয়া উপায়।

মাইগ্রেনে

শুধু কালোজিরাই নয়, এর তেলও শারীরিক নানা সমস্যা সমাধানে কাজে আসে। ক্রনিক মাথা যন্ত্রণা মাইগ্রেনের সমস্যা থাকলে কালো জিরের তেল কপালে মালিশ করলে আরাম পাওয়া যায়।

চুলপড়া রোধে

এক চামচ নারকেল তেলের সঙ্গে সমপরিমাণ কালোজিরার তেল মিশিয়ে গরম করে নিন। মাথায় ত্বকে এই তেল ঈষদুষ্ণ অবস্থায় মালিশ করুন। এক সপ্তাহ টানা এমন করলে চুল পড়ার সমস্যা মিটবে অনেকটাই।

বাড়তি মেদ ঝরাতে

গ্রিন টি-র সঙ্গে মিশিয়ে নিন কালো জিরের গুঁড়ো। মেটাবলিজম বাড়িয়ে শরীরের বাড়তি মেদ ঝরাতে বিশেষ কাজে আসে এই ঘরোয়া কৌশল।

উচ্চ রক্তচাপে

সপ্তাহে একদিন কালোজিরার ভর্তা রাখুন ডায়েটে। এর অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট রক্তচাপকে নিয়ন্ত্রণে রাখে। রক্তচাপের ওষুধের সঙ্গে এই পথ্য বিশেষ কার্যকর।

বাতের ব্যথায়

কালোজিরা ব্যথা সারানোর অন্যতম দাওয়াই। দীর্ঘদিনের পুরনোব্যথা বা বাতের ব্যথায় কালো জিরের তেল মালিশ করলে কিছুটা স্বস্তি মেলে।

রক্তস্বল্পতায়

কালোজিরায় ফসফেট, ফসফরাস ও লৌহের উপস্থিতি অধিক পরিমাণে থাকায় রক্তস্বল্পতার রোগীরাও এ থেকে উপকার পেয়ে থাকেন।

জীবাণুর সংক্রমণে

কালোজিরাতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণ ফসফরাস। শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে বাড়াতে সাহায্য করে ফসফরাস। তাই জীবাণুর সংক্রমণ ঠেকাতে একে অবহেলা করলে চলবে না।

ক্রনিক পেটের সমস্যায় 

কালোজিরা শুকনো খোলায় ভেজে গুঁড়ো করে নিন। এবার আধ কাপ ঠাণ্ডা দুধে এই কালোজিরা এক চিমটে মিশিয়ে খালিপেটে খান প্রতিদিন। দুধ ঠাণ্ডা হওয়ায় বদহজমও হবে না, উল্টে পেটের সমস্যা থেকে মুক্তি মিলবে এর দৌলতে।

অ্যান্টি ক্যানসার

এছাড়া, অ্যান্টি অক্সিড্যান্ট ও ক্যারোটিন থাকায় তা অ্যান্টি ক্যানসার হিসেবেও খাদ্যমহলে বেশ জনপ্রিয়।

আজ এই পর্যন্তই ।  যদি আমাদের আর্টিকেলটি একান্তভাবে ভালো লেগে থাকে তাহলে কমেন্ট করে জানান এবং আপনাদের ফ্রেন্ডদের কাছে শেয়ার করে জানিয়ে দিন । সবাই ভালো থাকুন, সুস্থ্য থাকুন এবং আমাদের সাথেই থাকুন!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *